মশা মারতেও আমাদের রুল দিতে হয়, বিশ্বে এমন নজির নেই

0
118

মশা মারতে পৃথিবীর আর কোনো দেশের হাইকোর্ট রুল দেয়, এমন নজির নেই বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। সোমবার (২২ জুলাই) বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর হাইকোর্ট বেঞ্চ এই মন্তব্য করে বলেন, মশা মারতেও আমাদের রুল দিতে হয়, বিশ্বে এমন নজির নেই, অথচ  আমাদের দিতে হয়।

এ সময় আদালত শুধু জনগণকে সচেতন না করে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তাদের মশা নিধনে কাজ করতে বলেন।

পরে আদালত মশা নির্মূলের কার্যক্রম সম্পর্কে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকেও তলব করে আদেশ দেন। আদালতে দুই সিটি করপোরেশনের প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সায়েরা ফাইরুজ।

পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন,‘ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধ বা নিয়ন্ত্রণে এডিসসহ মশা নির্মূলে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কি কি পদক্ষেপ নিয়েছে সে বিষয়ে দু’টি বাস্তবায়ন প্রতিবেদন দিয়েছিলাম। কোর্ট আমাদের প্রতিবেদনে সন্তুষ্ট হতে পারেননি। এজন্য সিটি করপোরেশনের চিফ হেলথ অফিসারকে (প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা) বৃহস্পতিবার তলব করেছেন।

কেন তাদের তলব করা হয়েছে জানতে চাইলে সায়েরা ফাইরুজ বলেন, ‘যে দুটি প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে সেখানে কি কি  কার্যক্রম নেওয়া হয়েছিল সে সম্পর্কে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা নেই বলে মনে করেছেন আদালত।

যদিও আমরা দেখিয়েছি যে, সিটি করপোরেশন চেষ্টা করছে মশা নিধন করতে। জনসচেতনতামূলক কাজ চালানো হয়েছে। কিন্তু মহামন্য আদালত বলছে যে, আরও স্টেপ নেওয়ার দরকার ছিল। এ সম্পর্কে জানতেই, বিশেষ করে এডিস মশা নির্মূলে সিটি করপোরেশন কি করছে তা জানতেই দুই কর্মকর্তাকে তলব করা হয়েছে বলে মনে করছি।’

প্রতিবেদন উপস্থাপন করার এক পর্যায়ে মশা নিধনে ওষুধ ছিটানোর প্রসঙ্গ এলে আদালত বলেন, কই আমরা তো দেখছি না। হঠাৎ করে মশার ওষুধ কোথায় পেলেন? ওষুধে কি কোনো কাজ হয়?

তখন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, জনসচেতনতামূলক বিভিন্ন পদক্ষেপও নেওয়া হয়েছে।

আদালত বলেন, জনসচেতনতা দিয়ে কী হবে, আপনারা সচেতন কিনা, এরপর জনগণের সচেতনতার কথা বলবেন। আর আপনারা যদি না পারেন তাহলে একটা আবেদন নিয়ে আসেন, সচেতন হওয়ার জন্য জনগণের উপর রুল জারি করে দেই। আপনাদের তো কাজ নাই। আগে তো কিছুই করেননি।

আর এটাতো বিশ্বাসযোগ্য হবে না যদি মানুষের হাসপাতালে যাওয়া বন্ধ না হয়। আমরা চাই হাসপাতালে যাওয়া বন্ধ হোক।

আদালত বলেন, মশা মারতে পৃথিবীর আর কোনো দেশের হাইকোর্ট রুল দেয়, নজির নাই। এরপর আদালত দুই সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে তলবের আদেশ দেন।

ঢাকা মহানগরীতে ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়াসহ মশাবাহি অন্যান্য রোগের বিস্তার রোধে এডিসসহ মশা নির্মূলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পদক্ষেপ নিতে গত ১৪ জুলাই নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here